Header Ads

sylhettoday news top advertise

জগন্নাথপুরে তিন লাখ টাকা মূল্যের ৭টি সরকারি গাছ ‘কেটে’ নিলেন যুবলীগ নেতা

সুনামগঞ্জ জেলার জগন্নাথপুরে সড়কের পাশ থেকে তিন লাখ টাকা মূল্যের ৭টি সরকারি গাছ কেটে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে এক যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে।

জগন্নাথপুরে তিন লাখ টাকা মূল্যের ৭টি সরকারি গাছ ‘কেটে’ নিলেন যুবলীগ নেতাআজ শুক্রবার দুপুরে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, সিলেট বিভাগীয় শহরের সঙ্গে জগন্নাথপুর উপজেলাবাসীর যোগাযোগের প্রধান সড়ক স্থানীয় সরকার (এলজিইডি) আওতাধীন জগন্নাথপুর-বিশ্বনাথ-রশিদপুর সড়কের জগন্নাথপুরের অংশের বাউরকাপন, শাসননবি ও রতিয়ারপাড়া এলাকায় সড়কের পাশ থেকে সরকারি সাতটি রেন্টি গাছ করাত দিয়ে কর্তন করে গাছগুলি কেটে নেয়া হয়েছে। স্থানীয়রা বলেছেন, গাছগুলি আনুমানিক মূল্য তিন লাখ টাকা হতে পারে।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, কয়েকদিন আগে স্থানীয় মীরপুর ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক একই ইউনিয়নের রতিয়ারপাড়া এলাকার বাসিন্দা সাজ্জাদ খাঁ তার লোকজন দিয়ে সড়কের পাশ থেকে  সরকারি সাতটি গাছ কেটে নিয়ে গেছেন। সরকার দলের নেতা হওয়ায় এলাকার কেউ বাঁধা প্রদান করেননি।

স্থানীয় বাসিন্দা বদরুল খাঁ বলেন, ঈদের আগে যুবলীগ নেতা সাজাদ খাঁ সরকারি সাতটি বড় সাইজের রেন্টিগাছ কেটে  নিয়ে গেছেন। আমরা সাজাদ খাঁকে জিজ্ঞাস করলাম গাঁছ কেন কাটছেন, এসময় তিনি জানান, ইউএনও ও এসিল্যান্ডের নির্দেশে গাছগুলি কাটছেন। তারপর আমরা আর কোন কথা বলিনি।

এলাকার হাজী আনোয়ার হোসেন বলেন, সাতটি গাছের আনুমানিক মূল্যে প্রায় তিন লাখ টাকা হবে।

এবিষয়ে অভিযুক্ত যুবলীগ নেতা সাজ্জাদ খাঁ’র সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি তাঁর বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ অস্বীকার করে সিলেট টুডে ডটকমকে বলেন, আমার প্রতিপক্ষের লোকজন আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে। তিনি কোনো ধরণের গাছ কাটেননি বলে জানিয়েছেন।

জগন্নাথপুর উপজেলা প্রকৌশলী (এলজিইডি) গোলাম সারোয়ার সিলেট টুডে ডটকমকে বলেন, গাছ কাটার বিষয়টি আমার জানা নেই। খোঁজ নিয়ে দেখবো।

জগন্নাথপুর উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) ইয়াসির আরাফাত সিলেট টুডে ডটকমকে বলেন, সরকারি গাছ কাটার জন্য আমরা কেউকে অনুমতি দেইনি। বিষয়টি তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ